হোম সাক্ষাৎকার জাপাতিস্তার পাঠতালিকা

জাপাতিস্তার পাঠতালিকা

জাপাতিস্তার পাঠতালিকা
477
0

[১৯৯৪ সালের জানুয়ারিতে মেক্সিকোর দক্ষিণতম রাজ্য চিয়াপাস-এর EZLN নামে খ্যাত বিপ্লবী সংগঠন (জাপাতিস্তা জাতীয় মুক্তি ফৌজ) যুদ্ধ ঘোষণা করে। এদের প্রধান মুখপাত্র সাবকমান্ড্যান্ট মার্কোস বা ইন্সারজেন্তো গালিয়েনো। কৃষি সংস্কারক তথা মেক্সিকান বিপ্লবের সর্বাধিনায়ক এমিলিয়ানো জাপাতা (১৮৭৯-১৯১৯)-র নামে এই গোষ্ঠীর নামকরণ হয়েছিল এবং এদের আদর্শকে বলা হয় জাপাতিসমো। এরা বিশ্বায়ন, নয়া উদারনীতিবাদের বিরুদ্ধে এবং উদারনৈতিক সমাজবাদের পক্ষে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করে রাষ্ট্রের সাথে সামরিক যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। এদের সংগ্রাম সারা বিশ্বে প্রচার পায় এবং তৃতীয় বিশ্বের সাম্রাজ্যবাদবিরোধী মুক্তিকামী মানুষের মনে অভূতপূর্ব আশার সঞ্চার করে।

১৯৯৪ সালের জানুয়ারি মাসে ৩০০০ সশস্ত্র গেরিলা মেক্সিকোর অন্যতম শহর চিয়াপাস দখল করে নেয়। সরকার পক্ষ খানিক নতিস্বীকার করার অছিলায় EZLN বিদ্রোহীদের সাথে অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করার কয়েক মাসের মধ্যেই তা লঙ্ঘন করে জাপাতিস্তার ঘাঁটি চিয়াপাস আক্রমণ করে। তাতে বহু বিদ্রোহী ও আন্দোলনরত সাধারণ মানুষ নির্মমভাবে নিহত হয়। বিদ্রোহীদল পশ্চাদপসরণ করে পাহাড়ে আত্মগোপন করলে গ্রামগুলি পরিত্যক্ত পড়ে থাকে।

এরপর ২০০৫-এ নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের শিথিলতার সুযোগে নতুনকরে  সংঘবদ্ধ হবার চেষ্টা করে EZLN বিদ্রোহীরা। এখনও প্রতিবাদ বিক্ষোভ প্রচার ও স্থানিক সশস্ত্রযুদ্ধের মধ্য দিয়ে  তাদের সেই প্রচেষ্টা অব্যাহত।

এই কথোপকথনটি জাপাতিস্তা ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মির নেতা সাবকমান্ড্যান্ট মার্কোসের একটি দীর্ঘ সাক্ষাৎকারের অংশ (নেটওয়ার্ক সংস্করণ)। মেক্সিকোর ‘কামবিও’ পত্রিকার তরফে সাক্ষাৎকারটি নিয়েছিলেন বিশ্ববিশ্রুত সাহিত্যিক গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস। জাতিসত্তার সংগ্রাম এবং সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী সংগ্রামে প্রচারের আলোয় আসা এই সংগঠনের অন্যতম নেতা মার্কোসের সঙ্গে এই আলাপচারিতায় গেরিলা জীবনের খণ্ডচিত্র পাই আমরা। মার্কোস এখানে ধরা দিয়েছেন একজন বিপ্লবী কবি সাহিত্যিক এবং পাঠক হিশেবে। বিপ্লবী রোমান্টিসিজম লাতিন আমেরিকার অঙ্গ, এখনই তাই অনেকেই মার্কোসকে তুলনা করতে শুরু করেছেন চে গুয়েভারার সঙ্গে। মার্কসবাদের সাথে তাদের একাত্মতা আছে, আবার নিজেদের তারা অ্যানার্কিস্ট জাতীয়তাবাদী বলে মনে করেন, সুতরাং বিরোধও আছে। সব জটিলতা নিয়েই সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী সংগ্রামে জাপাতিস্তা একটি নাম। এই অনুবাদকর্মটি অর্ধ দশকেরও আগের, কিন্তু এখনো বন্ধুদের ভালো লাগবে আশা রাখি।]

—অনুবাদক


01


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এত বিশৃঙ্খলার ভেতর আপনি এখনও কি পড়ার সময় পান?

মার্কোস

হ্যাঁ, কারণ তা নাহলে… কী করতাম তবে আমরা? সেনাবাহিনীর যারা আমাদের মুখোমুখি হয়, সেই সৈন্যরা অস্ত্র পরিষ্কার রাখে প্যারেড করে। একইরকমভাবে আমাদের অস্ত্র হলো আমাদের শব্দ, তাই আমরা আমাদের অস্ত্রাগারের উপর নির্ভর করি।

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

যা আপনি বললেন—আঙ্গিক এবং বিষয়বস্তুর নিরিখে—সেটি তুলে ধরে যে এক গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্যগত প্রেক্ষাপট রয়েছে আপনার। এটা কোথা থেকে আসে আর কেমন করেই-বা আপনি এটা পান?

মার্কোস

এটা আমার শৈশবের হৈচৈ ভরা সময় থেকেই রয়েছে। আমার পরিবারে শব্দের খুবই বিশেষ মূল্য ছিল। আর এই পথেই আমরা ভাষাকে মাধ্যম করে পৃথিবী পর্যটনে বেরিয়ে পড়তাম। আমরা স্কুলে পড়তে শিখি নি, সংবাদপত্র পড়তে পড়তেই পড়তে শিখেছি। আমাদের বাবা-মা আমাদের বই পড়তে শিখিয়েছিলেন, যা খুব দ্রুতই আমাদের নতুন জিনিসের দিকে এগিয়ে যাওয়া মঞ্জুর করেছিল। অভ্যস্ত এই পথে বা অন্যভাবে আমরা অর্জন করেছিলাম ভাষা সচেতনতা, কেবল একে অপরের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম হিশেবে নয় বরং কিছু নির্মাণের মাধ্যম হিশেবেও। যেন এটা ছিল কোনো কাজ অথবা সম্পত্তি হস্তান্তরের দলিল প্রাপ্তির চেয়েও আনন্দদায়ক কিছু। যখন ভাণ্ডারের মতো বয়স এসে দাঁড়াল, শব্দরা বুর্জোয়া বুদ্ধিজীবীদের জন্য উচ্চমূল্যের রইল না। এটাকে নিচুপদে অপসারিত করা হলো। এটা হলো তখন, যখন স্বদেশি সম্প্রদায়ের আমরা যাদের ভাষা হয়ে দাঁড়াল পাথর ছোড়া গুলতির মতো। আপনি উপলব্ধি করতে পারবেন শব্দরা আপনাকে কোনো ব্যাপার ব্যাখ্যা করতে পারছে না, আপনাকে বাধ্য করছে ভাষা দক্ষতা বাড়ানোর কাজ করতে, অনুশীলন করতে এবং শব্দগুলোকে সশস্ত্র আর নিরস্ত্র করতে।


07


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এটা আর অন্য কোনো উপায়ে হতে পারত না?  ভাষার উপর এই নিয়ন্ত্রণ এই নব্যযুগে কি মঞ্জুর হতে পারত না?

মার্কোস

এটা একটা মিশ্রণের মতো, আপনি জানেন না কোনটিকে আপনি প্রথমে ছুড়ে ফেলেন, আর শেষ করেন কোনটি দিয়ে, যা শেষমেশ হয়ে দাঁড়ায় একটা ককটেল।

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

আমরা কি সেই পরিবারটির ব্যাপারে কথা বলতে পারি?

মার্কোস

সেটি ছিল একটি মধ্যবিত্ত পরিবার। আমার বাবা ছিলেন পরিবারের প্রধান, একজন স্কুল শিক্ষক (লাজারো) কার্দেনাসের আমলের, তার কথা অনুযায়ী যে সময়ে কমিউনিস্ট হাবার কারণে শিক্ষকদের কান কেটে নিত ওরা। আমার মা’ও একজন গ্রামীণ শিক্ষক, অবশেষে বদলাল, আর আমরা পরিণত হলাম একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে, আমি বলতে চাইছি যে একটি পরিবার যার সত্যিকারের কোনো অভাব নেই। সেই প্রাদেশিক অঞ্চলে সবকিছুই, যেখানে সাংস্কৃতিক দিগন্তের দেখা মেলে স্থানীয় সংবাদপত্রের ‘সমাজ’ পাতায়। এর বাইরের দুনিয়া, অথবা বিরাট শহর মেক্সিকো সিটি ছিল বড় আকর্ষণ, বইদোকানগুলো ছিল আসল কারণ। আসলে সেখানে ছিল প্রদেশগুলির বাইরের বইমেলাগুলো, আর সেখানে আমরা কিছু বই পেতে পারতাম। গার্সিয়া মার্কেস, ফুয়েন্তেস, মনসিভায়েজ, ভার্গাস লোসা—স্বাধীনভাবে যেভাবে তারা ভেবেছেন এ তার সামান্য উল্লেখ, তাদের সবাইকে পেয়েছি আমার বাবা-মা’র মাধ্যমে। তাদের পড়ার জন্য তারা আমাদের তৈরি করেছিলেন। ওয়ান হান্ড্রেড ইয়ার্স অব সলিচিউড মানে ছিল সে-সময় সেই প্রদেশটি কেমন ছিল তার ব্যাখ্যা, আর দ্য ডেথ অব আরতিমেও ক্রুজ ব্যাখ্যা করত বিপ্লবের দিনগুলোতে কী ঘটেছিল। (কার্লোস মনসিভায়েজ)’ দিয়াস দে গুয়ারদার’ হলো মধ্যবিত্ত পরিবারে কী ঘটত তার ব্যাখ্যা। আরো একধাপ এগিয়ে যদিও নগ্ন, আমাদের ছবি ছিল দ্য সিটি অ্যান্ড দ্য ডগস-এ। সমস্ত কিছুই ছিল সেখানে। আমরা এভাবেই বাইরের দুনিয়ায় এলাম, এলাম সাহিত্যকে জানার ফলে। আর আমার বিশ্বাস এটাই আমাদের সাকার করেছে। আমরা দুনিয়াকে সংবাদ নিবন্ধের মাধ্যমে জানতে পারি নি, কিন্তু জেনেছি একটি উপন্যাস, একটি প্রবন্ধ, অথবা একটি কবিতার মাধ্যমে। আর এসবই আমাদের খুবই স্বতন্ত্র করেছে। এগুলো একটা যা আমাদের বাবা মা দিয়েছিলেন, অন্যদের মতো মাসমিডিয়া হলেও হতে পারত একটি লুকিং গ্লাস অথবা একটি অস্বচ্ছ কাঁচ, যা দিয়ে কি ঘটে চলেছে তা কেউ দেখতে পায় না।


02


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এসব পাঠ্যের মাঝে ‘ডন কুইকজোট-এর জায়গা কোথায়?

মার্কোস

তারা আমাকে একটি সুন্দর বই উপহার দিয়েছিলেন, যখন আমার ১২ বছর বয়স—একটি হার্ডকভারের বই। সেটি ছিল ডন কুইকজোট দে লা মাঞ্চা। সেটি আমার আগে পড়া ছিল কিন্তু সেটা ছিল কিশোর সংস্করণ। এটা ছিল দামি বই, খুবই দারুণ উপহার আমি যার অপেক্ষায় ছিলাম। এরপরে এলেন শেক্সপিয়র। কিন্তু আমি যদি বলতে পারতাম যে ক্রমপর্যায়ে বইগুলো এসেছিল, সেটি ছিল প্রথম ‘বিস্ফোরণ’ লাতিন আমেরিকার সাহিত্যে সার্ভেন্তিসের চেয়েও, গার্সিয়া লোরকার চেয়েও, সেই সময়ের সমস্ত কবিতার চেয়েও। এই আপনি (গার্সিয়া মার্কেসকে উদ্দেশ্য করে) অংশত দায়ী তার জন্য।

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এসবের মধ্যে অস্তিত্ববাদীরা আর সার্ত্রেও কি ছিলেন?

মার্কোস

না। আমরা ওগুলোয় পৌঁছেছি দেরিতে। স্পষ্টত অস্তিত্ববাদী আর তার আগে বিপ্লবী সাহিত্য যাতে আমরা পৌঁছেছিলাম তা ছিল খুব ‘ছাঁচে ঢালা’—বলা যেত গোঁড়া। তাই সেইসময় আমরা পেয়েছিলাম মার্কস এবং এঙ্গেলসকে, আমরা ছিলাম সাহিত্যের রসিকতা আর বক্রোক্তির প্রভাবে দূষিত।


05


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

রাজনৈতিক তত্ত্বের কোনো পড়াশোনা ছিল না সেখানে?

মার্কোস

প্রথম স্তরে ছিল না। ABC পড়ার সময় থেকেই আমরা সাহিত্যের পাঠে প্রবেশ করেছি এবং তারপর তাত্ত্বিক আর রাজনৈতিক পাঠে, যখন আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে গেলাম।

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

আপনার সহপাঠীরা কি আপনার মতো ভাবত বা কমিউনিস্ট হতে পারত?

মার্কোস

না আমি তা ভাবি না। তবে তাদের মধ্যে বেশীরভাগই আমাকে খুব কমই বলেছে যে আমি একটা লালমূলো ছিলাম, লালমূলো—বাইরে লাল ভেতরে শাদা।

03


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এখন আপনি কী পড়ছেন?

মার্কোস

আমার শয্যার পাশে থাকে ডন কুইকজোট, আর আমি সবসময় কাছে রাখি গার্সিয়া লোরকার রোমান্সেরো গিতানো। ডন কুইকজোট রাজনৈতিক তত্ত্বের বাইরে সবচেয়ে সেরা বই তারপর হ্যামলেট আর ম্যাকবেথ। মেক্সিকোর রাজনৈতিক ব্যবস্থার ট্র‍্যাজেডি আর কমেডি বোঝার জন্য আর কোনো ভালো পথ নেই হ্যামলেট, ম্যাকবেথ আর ডন কুইকজোট ছাড়া। এগুলো অনেকবেশি ভালো যেকোনো রাজনৈতিক বিশ্লেষণের কলামের তুলনায়।


04


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

আপনি হাতে লেখেন না কম্পিউটারের সাহায্যে লেখেন?

মার্কোস

কম্পিউটারে। যখন চলমান থাকি তখন হাতেই লিখতে হয় কারণ আমার কাজ করবার কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই। আমি একটার পর একটা খসড়া লিখি। আপনি ভাবছেন আমি মজা করছি, কিন্তু এটা হলো সপ্তম খসড়া যা সেইসময় আমি লিখেছি।

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

কোনো বইয়ের উপর আপনি কাজ করছেন?

মার্কোস

আমি যা লিখতে চাইছি তা এবসার্ড বিষয়ক, এটা হলো আমরা নিজেরা নিজেদের প্রতি কেমন তা ব্যাখ্যার প্রচেষ্টা, যা প্রায় অসম্ভব। আমাদের বুঝতে হবে যে আমরা আত্মবিরোধী হলেও সত্যবিরোধী নই, কারণ একটা বিপ্লবী বাহিনী ক্ষমতা দখলের জন্য বিবেচনার প্রস্তাব দিতে পারে না…

সমস্ত প্যারাডক্সদের সঙ্গে আমাদের সংঘর্ষ রয়েছে : যে, আমরা বেড়ে উঠেছি, শক্তি অর্জন করেছি, একটি সংগঠন হিশেবে সম্পূর্ণই সারিবদ্ধ সাংস্কৃতিক সূত্রের সৌজন্যে।


06


গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস

এই মুখোশের আড়াল কেন, যদি সবাই জেনে যায় আপনি কে তাই?

মার্কোস

চূড়ান্ত বিজয়ের উপরে থেকে যাওয়া এটা একটা টুকরো কাপড়। তারা জানে না আমি কে আর তারা তা পরোয়াও করে না। কী ঘটেছে এখানে সাবকমান্ড্যান্ট মার্কোসটা কে কিংবা কে ছিল এসবও না।

মৃন্ময় চক্রবর্তী

জন্ম ১৯৭৬। কবি, গদ্যকার, অনুবাদক এবং চিত্রশিল্পী।

প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ :

বেঁচে থাকার স্বপ্নগুলি [২০০৪]
এই মৃগয়া এই মানচিত্র [ ২০০৮]
পাঁচালি কাব্য : ভুখা মানুষের পাঁচালি [২০০৯]

সম্পাদিত গ্রন্থপুস্তিকা :

রাত্রির কঠোর বৃন্ত থেকে, মানিক শতবর্ষপূর্তি (শমীবৃক্ষ)
নির্মোহ রবীন্দ্রনাথ (শমীবৃক্ষ)

সম্পাদিত পত্রিকা : মাটির প্রদীপ

ই-মেইল : mrinmoyc201@gmail.com