হোম গদ্য গল্প বই থেকে : মরার প্র্যাকটিস

বই থেকে : মরার প্র্যাকটিস

বই থেকে : মরার প্র্যাকটিস
280
0

একটা লুক একটা বাসকোর ভিতরে ঢুইকা মরার প্র্যাকটিস করবার নুইছিল।

এই সিন দেইখা একটা বিড়ালের বাচ্চা আইগিয়া আইয়া তারে কইল, তুমি মরবার চাউ ক্যা?

প্র্যাকটিসরত লুকটা একটু ভুদাই হইল এবং কইল, তুই জানলি ক্যামনে?

বিড়াল কয়, তুমার প্যাট্টিস দেইখাই বুজছি।

লুকটা তাজ্জব বইনা কয়, প্যাট্টিসে তো কুনো সাইনবুড দেই নাই। সাইনবুড না দেইখাই তুই বুইজা হালাইলি?

বিড়াল কয়, সাইন বুড তো নাগে না, তুমার অভিনয়ই তো যতেশ।

আরো কয়, একবার তো মুনে হইল তুমি মুনয় সত্যি সত্যিই মইরা গেলাগা। তা দেকলাম মরো নাই। তা মরবার চাও ক্যা?


এ এক অর্থহীন নিরর্থক গিয়ানজাইমা খেলা। তাই জীবনকে আমার আর ভালো লাগে না, আমি মরতে চাই। 


এইবার ব্যাকড়ে পড়ে লুকটা। কইব কি কইব না, এই চিন্তায় সময় ক্ষেপণ দেয়।

বিড়াল মিচিমিচি হাসে, মনে মনে।

লুকটা সেইসব না দেইখাই কইতে থাহে, আসলে কী কমু দুঃখের কতা, আমার যে আর বাঁইচা থাকতে ভাল নাগে না..

বিড়াল বাচ্চা কয়, ক্যা?

লুকটা কয়, জীবনে আমি আর আমোদ পাই না। জিবলায় কুনো স্বাদ নাই। কুনো দিশ্যই আর চোকে ধরে না। ফলে মুনে হয়, এ জীবন মিছা। এর কুনো সিন নাই, সিনারি নাই। এ এক অর্থহীন নিরর্থক গিয়ানজাইমা খেলা। তাই জীবনকে আমার আর ভালো লাগে না, আমি মরতে চাই। তাই এই পেট্টিস।

তহন বিড়াল কয়, তুমার বউ আছে?

লুকটা কয়, আছে।

বিড়াল কয়, হে তুমারে ভালো বাসে?

লুকটা কয়, তাতো জানি না।

বিড়াল, ক্যা তারে জিগাস করো নাই?

লুকটা, করছি।

বিড়াল, তা হে কী কয়?

লুকটা, কয় ভালোবাসে।

বিড়াল, তাইলে সমিস্যা কী?

লুকটা কয়, সমিস্যা নাইতো, সবই তো সমাধান। তে সমাধান দিয়া তো আর জীবন চলে না?

বিড়াল, মানে?

মানে হইল আমার কুনো সমস্যা নাই। ফলে কুনো সমাধানো নাই। এইডাই একটা বিরাট সমিস্যা।

বিড়াল কয়, তাইলে তুমি কয়ডা সমস্যা বানাও। তাইলেই তো কেস ডিসমিস।

এনেই তো বন্ধু ভুল করলা। আমি তো কুনো বানাইনা জিনিসে বিশ্বাস করি না।

তাইলে তো সমিস্যাই—চিন্তায় পড়ে বিড়াল।


এত ভাবনা চিন্তার আসলেও কিছু নাই। আর থাকলেও এত চিন্তা ভাবনার পুটকি মারা যাবে না।


লুকটা কয়, এত চিন্তা কইরো না বন্ধু, একটা কিছু হইবই। হয় মরুম, নয় বাঁচুম।

বিড়াল কয়, তাইতো। এত চিন্তা ভাবনারই বা কী আছে?

লুকটা কয়, হ। এত ভাবনা চিন্তার আসলেও কিছু নাই। আর থাকলেও এত চিন্তা ভাবনার পুটকি মারা যাবে না। তাই সব দিক বিবেচনায় নিয়া আমি মরার পেট্টিস ধরছি।

মরার প্র্যাকটিসের গুঢ় তত্ত্ব জাইনা বিড়াল পচুর আমোদ পায়। তারও মনে হয়, তারও একটু মরার প্র্যাকটিস করা দরকার। সেও বাসকোর ভিতর নাইমা কয়, বন্ধু আমিও এট্টু মরার পেট্টিস করি?

লুকটা কয়, করবা? কিন্তু মরার পেট্টিস তো ভালো না। সত্যি সত্যি মইরা যাইতে পারো।

সত্যি সত্যি মইরা গেলেই সমিস্যা কী?

লুকটা কয়, কুনোই সমিস্যা নাই। সবই সমাধান। নও তাইলে দুইজনে মিলাই মরার পেট্টিস করি।

তুমুল আমোদ নিয়া তারা মরার প্র্যাকটিস করে।

Abu Mustafiz

আবু মুস্তাফিজ

জন্ম ১৭ অক্টোবর, ১৯৭৬, টাঙ্গাইল। স্নাতক ও স্নাতকোত্তর, সরকার ও রাজনীতি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। পেশা : ব্যবসায়।

প্রকাশিত বই :
গল্প—
লুহার তালা [শুদ্ধস্বর, ২০১০]
একটি প্রাকৃতিক সাইন্স ফিকশন: শিন্টু ধর্মাবলম্বী রাজা, সবুজ ভদ্রমহিলা ও একজন অভদ্র সামুকামী [গুরুচণ্ডা৯, কলিকাতা, ২০১২]
ট্যাকারে ট্যাকা [শুদ্ধস্বর, ২০১৪]

ই-মেইল : abumustafiz@gmail.com
Abu Mustafiz