হোম সাক্ষাৎকার ‘দ্য রিটার্ন’-এর পরিচালক আন্দ্রেই জিগানিৎসেভের সাক্ষাৎকার

‘দ্য রিটার্ন’-এর পরিচালক আন্দ্রেই জিগানিৎসেভের সাক্ষাৎকার

‘দ্য রিটার্ন’-এর পরিচালক আন্দ্রেই জিগানিৎসেভের সাক্ষাৎকার
440
0

যদি কেউ আমাকে প্রশ্ন করেন, ‘সমসাময়িক বিশ্ব-চলচ্চিত্রে কোন পরিচালক আপনার বিশেষ মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছেন’—তবে সবার প্রথমেই যার নাম বলব তিনি ‘আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ’ এবং শুধু তার নাম উল্লেখ করেই ক্ষান্ত হব না, বরং সেই সাথে এই বাক্যটুকুও জুড়ে দেবো, ‘তারকোভস্কির পর যদি কোনো পরিচালক আমাকে চলচ্চিত্র বিষয়ে আরও গভীরভাবে ভাবতে সহয়তা করে থাকে, তবে তিনি আর কেউ নন, ‘দ্য রিটার্ন’ চলচ্চিত্রটির পলিচালক, আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ। অনেক চলচ্চিত্রবোদ্ধাই তাকে অভিহিত করেন তারকোভস্কির উত্তরসূরি হিশেবে, আর আমার কাছে তারকোভস্কি ও বার্গম্যানের পর তিনিই একমাত্র পরিচালক, যিনি বিষাদময় বাতাবরণে দর্শককে অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে যেতে সক্ষম, যেখানে তারা একই সাথে বিমূঢ় ও সমৃদ্ধ বোধ করে।

১৯৬৪ সালে সাইবেরিয়ায় জন্ম নেয়া এই পরিচালক চেয়েছিলেন একজন অভিনেতা হতে এবং ১৯৯২ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত কাজ করেছেন বিভিন্ন থিয়েটার ও চলচ্চিত্রে। ২০০০ সালে রাশিয়ান রেন টিভির জন্য ‘ডার্ক রুম’ নামে একটি সিরিজের তিনটি পর্ব তৈরির মাধ্যমে আসেন পরিচালনায়। এখন পর্যন্ত চারটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র তিনি পরিচালনা করেছেন। তার প্রথম চলচ্চিত্র ‘দ্য রিটার্ন’ মুক্তি পায় ২০০৩ সালে—যা তাকে কেবল আন্তর্জাতিক পরিচিতি ও সম্মান এনে দেয় নি, বরং জিতিয়ে দিয়েছে ‘গোল্ডেন লায়ন’ ও ‘ইউরোপিয়ান ফিল্ম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড’। এছাড়াও ‘গোল্ডেন গ্লোব’-এ বেস্ট ফরেন ল্যাংগুয়েজ ফিল্ম হিশেবে নির্বাচিত হওয়াসহ চলচ্চিত্রটি জিতে নিয়েছে অনেক সম্মানিত পুরস্কার। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয়, ১৯৬২ সাল থেকে তারকোভস্কির পর তিনিই একমাত্র রাশিয়ান পরিচালক যিনি প্রথম চলচ্চিত্রেই ‘গোল্ডেন লায়ন’ পুরস্কারটি জিতেছেন। তার পরবর্তী চলচ্চিত্র দুটিও (‘দ্য ব্যানিসমেন্ট ২০০৭’ ও ‘এলেনা ২০১১) যথেষ্ট প্রশংসিত হয় এবং উভয়ই কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে যথাক্রমে ‘বেস্ট মেল রোল’ ও ‘স্পেশাল জুরি প্রাইজ’ জিতে। ২০১৪ সালে মুক্তি পায় তার চতুর্থ চলচ্চিত্র ‘লিভিয়াতান’ আর বরাবরের মতো এটিও আন্তর্জাতিক মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয় এবং অস্কার ও বাফটা মনোনয়নসহ জিতে নেয় কান, গোল্ডেন গ্লোব ও অন্যান্য সম্মানিত পুরস্কার। বস্তুত, এই চলচ্চিত্রটি দেখার পর আমার মনে হয়েছে, পরিচালক হিশেবে ‘দ্য রিটার্ন’ থেকে ‘লেভিয়াথান’ পর্যন্ত তার যে পরিক্রমা—সেখানে তিনি কেবল নিজেকে ছাপিয়ে যেতেই মগ্ন নন, বরং প্রতিবারই আমাকে এই প্রশ্নের সামনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন, ঠিক কোন চলচ্চিত্রটিতে তিনি অধিক সৃষ্টিশীল ও স্বকীয়?

‘দ্য রিটার্ন’ চলচ্চিত্রটি শুরু হয় অকস্মিকভাবে, যেখানে ‘ভ্যানিয়া’ ও ‘আন্দ্রেই’, দুই ভাই প্রতিবেশী বালকদের সাথে মারপিট করে ঘরে ফিরে দেখে যে, তাদের ১২ বছর ধরে নিখোঁজ পিতা ফিরে এসেছে, যাকে তারা এতদিন একটি অস্পষ্ট ছবির মধ্যে আবছাভাবে চিনেছে। যদিও বালকদ্বয়ের মনে অচেনা এই মানুষটিকে পিতা হিশেবে মেনে নিতে সংশয় তৈরি হয়, তারপরও তারা পিতার সাথে গন্তব্যহীন ভ্রমণে ঘুরতে বের হয়। গন্তব্যহীন সেই ভ্রমণে নানাবিধ ঘটনা পরিক্রমায় এগিয়ে যাওয়া চলচ্চিত্রটি শেষ হয় জনমানবহীন দ্বীপে করুণতম ট্রাজেডির মাধ্যমে আর সমগ্র চলচ্চিত্র জুড়ে পিতার সাথে থাকা রহস্যময় বাক্সটি, যার মধ্যে কী আছে তা জানার জন্য আমাদের যে সীমাহীন আগ্রহ, তাও ম্রিয়মাণ হয়ে পড়ে চলচ্চিত্রটির সম্পূর্ণ অনাকাঙ্ক্ষিত সমাপ্তিতে।

পরিচালক তার এই অনবদ্য চলচ্চিত্রটি নিয়ে কথা বলেছেন বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে আর সেসব মূল্যবান আলাপচারিতা থেকে পাঠকের সুবিধার্থে দুটি উল্লেখযোগ্য সাক্ষাৎকারের প্রয়োজনীয় অংশের ভাষান্তর একত্রে তুলে দেয়া হলো, যার একটি নিয়েছেন, ইন্ডিওয়্যার (www.indiewire.com) এর পক্ষে ‘এরিকা আবিল’ এবং অপরটি নিয়েছেন রাশিয়ার দৈনিক পত্রিকা কোমারসান্ত এর পক্ষে ‘অ্যালেক্সেই কারাখান’।


সা ক্ষা ৎ কা র
❑❑


এরিকা আবিল

কিভাবে আপনি চলচ্চিত্র পরিচালনায় এলেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আমার মনে আছে, দশম শ্রেণি শুরুর সময় আমি চেয়েছিলাম থিয়েটারে কাজ করতে এবং একজন অভিনেতা হতে। সে জন্য আমি সাইবেরিয়ার অভিনয় স্কুলে গিয়েছিলাম, কিন্তু সেখানে কোনো ভবিষ্যৎ ছিল না, আর আমি ছিলাম উচ্চাভিলাষী, ফলে মস্কোর স্টেট থিয়েটার স্কুলে অভিনয় বিভাগে ভর্তি হলাম। সেখানে থিয়েটার ল্যাবে অভিনয়ের মাধ্যমে পরীক্ষামূলক থিয়েটারে এসেছিলাম।


আমি মূলত দর্শককে সময় কাটানোর মতো অনুভব দিতে চেয়েছিলাম।


এরিকা আবিল

কখন আপনি থিয়েটার থেকে চলচ্চিত্রে এলেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

1
দ্য রিটার্ন

‘পেরেস্ত্রোইকা’ (৮০র দশকে রাশিয়ার রাজনৈতিক আন্দোলন) পরবর্তী সময়ে রাশিয়ায় ১৯৯৩ সালটি ছিল খারাপ এবং আমার কাজ খুঁজে পেতে সমস্যা হচ্ছিল। সুতরাং, আমি একটি ফার্নিচার স্টোরের জন্য বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন তৈরির কাজ নিয়েছিলাম। সেখান থেকেই শুটিং এর কলা-কৌশল বোঝার মাধ্যমে বিষয়টি রপ্ত করেছিলাম। মূলত ‘লা’ভেনতুরা (দ্য অ্যাডভেঞ্চার) চলচ্চিত্রটি আমাকে বিস্ময়াভিভূত করেছিল এবং ‘রকো অ্যান্ড হিজ ব্রাদার’ কিংবা ‘রোমার’ এর মতো ৬০এর দশকের চলচ্চিত্রগুলো গোগ্রাসে গিলেছিলাম।

এরিকা আবিল

কিভাবে আপনি বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন থেকে চলচ্চিত্রে আসতে সক্ষম হলেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আমাকে আবিষ্কার করেছিলেন আমার প্রযোজক ‘দিমিত্রি লেভনেভস্কি’, যিনি ছিলেন রাশিয়ান রেন-টিভির প্রতিষ্ঠাতাদের একজন। আমার কাছে তিনি ধর্মপিতার মতো। তিনি আমাকে ‘ডার্ক রুম’ নামের রাশিয়ান একটি টিভি সিরিজের তিনটি পর্ব পরিচালনার জন্য নিযুক্ত করেছিলেন।

এরপর তিনি আমার তৈরি ‘দ্য রিটার্ন’ এর চিত্রনাট্য হতে চলচ্চিত্র বানানোর জন্য বললেন। এটা ছিল থ্রিলার জনরার চলচ্চিত্র। আমি মূলত দর্শককে সময় কাটানোর মতো অনুভব দিতে চেয়েছিলাম, ফলে সাত দিনে বিভক্তির বিষয়টি এতে যুক্ত করেছিলাম। মূল চিত্রনাট্যে পিতার বাক্সটি ছিল এমন এক বস্তু, যার উপর দস্যুদের নজর ছিল আর শেষ পর্যন্ত দর্শকরা জানতে পারে যে, এর মধ্যে কী ছিল। পটভূমি এখানে কৌশলে বিশুদ্ধ নাটকীয়তার উপর প্রাধান্য পায়। লেভনেভস্কি আমাকে চিত্রনাট্য নিয়ে ইচ্ছে মাফিক কাজ করার স্বাধীনতা দিয়েছিলেন।

এরিকা আবিল

কিভাবে আপনি বালকদ্বয়কে খুঁজে পেয়েছিলেন?

2
পরিচালক আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

ছয় মাস ধরে আমি সেন্ট পিটার্সবুর্গ ও মস্কোতে স্ক্রিন টেস্ট নিয়েছিলাম। আন্দ্রেই চরিত্রের বালকটির জন্য আমি বেশ চিন্তিত ছিলাম, কেন না সে ছিল মোটর দুর্ঘটনায় আক্রান্ত এবং অমনোযোগী, অথচ তাকে নির্বাচন করার মতো ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্ত আমি নিয়েছিলাম। আর পিতার চরিত্রটির জন্য একজন অদ্ভুত অভিনেতাকে খুঁজে পেয়েছিলাম, যিনি স্টেজে অভিনয় করতে লজ্জা পাবার দরুন নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন আর এই বিষয়টিই আমাদের কাছাকাছি এনেছিল, কেন না আমি নিজেও একই অবস্থার মধ্যে দিয়ে এসেছিলাম, যার ফলে থিয়েটারে আমার কোনো উন্নতি হয় নি।


আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় চিত্রকল্প, ভাবনা নয়।


এরিকা আবিল

চলচ্চিত্রে যে বালকটি আন্দ্রেই চরিত্রে অভিনয় করেছে, চলচ্চিত্রটি প্রথমবার প্রদর্শনের ঠিক পূর্বেই সে ২৫ জুন একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় জলে ডুবে মারা যায়! আপনি কি এই ঘটনায় রহস্যজনক কিছু খুঁজে পান?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

7
দ্য রিটার্ন

২০০২ সালে যেদিন আমরা চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু করেছিলাম, সেই দিনটিও ছিল ২৫ জুন, সুতরাং তারিখটি একটি রহস্যময় সংখ্যার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে। ‘সমাপ্ত’ চলচ্চিত্রটি দেখার জন্য আমরা যখন তাকে ই-মেইলের মাধ্যমে আমন্ত্রণ পাঠাই, তখন সে দেশে গিয়েছিল। সে নৌকা থেকে লেকের পানিতে ঝাঁপ দিয়েছিল এবং তাকে আর কখনোই দেখা যায় নি। এটা ছিল কোনো প্রকার পূর্বাভাস ছাড়াই ভয়াবহ রকমের শোকাবহ ঘটনা।

এরিকা আবিল

চলচ্চিত্রটির ক্ষেত্রে আপনার অনুপ্রেরণা কী ছিল?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

এটা তেমন বিষয়, যা আমার উদ্দীপনা ও কল্পনা শক্তিকে বাঁচিয়ে রাখে—যার সম্পর্কে কথা বলতে আমি নারাজ। আমি বরং এই বলতে চাই, ‘আপনি কি সেই ব্যক্তির অবস্থা আন্দাজ করতে পারেন, যে দশটি বছর একটি চলচ্চিত্র বানানোর জন্য সুযোগের অপেক্ষায় ছিল?’

এরিকা আবিল

পিতাটি কি আসল পিতা ছিল? তাকে বদমেজাজি ও ভীতিকর মনে হচ্ছিল।

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

4
আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আপনার কি মনে হয়েছে যে, সে দৃশ্য থেকে কোনোভাবে উধাও হয়ে গিয়েছিল? অথবা সে হয়তো কখনোই সেখানে ছিল না? আসলে আপনি কী বোঝাতে চাইছেন?

এরিকা আবিল

কিছু সময় তাকে আমার নকল পিতা মনে হয়েছে, যে বালকদের অনিষ্ট করতে চায়। আমি বিশ্বাস করি না যে একজন সত্যিকারের পিতা তার সন্তানকে ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে রাস্তায় ছেড়ে যেতে পারে।

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

সম্ভবত আপনি ভুল। এমন পিতাও রয়েছে যিনি কাজটি করতে পারেন। টিম রথের ‘দ্য ওয়ার জোন’ চলচ্চিত্রে পিতা তার কন্যাকে ধর্ষণ করে। সেই পিতাটি ছিল বাস্তবিক এক দানব।


কেউ অবশ্যই চিৎকার করে পবিত্র কিছু কিংবা গুরুত্বপূর্ণ অর্থবহতার বিষয়ে কথা বলবে না, কারণ যেইমাত্র সে তা বলা শুরু করবে, যা কিছু রহস্যময় ও পবিত্র তা মুহূর্তেই বাষ্পীভূত হবে।


এরিকা আবিল

মানলাম, কিন্তু কেন পিতাটি ফিরে এসেছিল?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

5
দ্য রিটার্ন

যদি কারণটি বলি, তবে কি তা আপনাকে চলচ্চিত্রটি সম্পর্কে কোনো ধারণা দেবে?

এরিকা আবিল

হয়তো তা আমাকে চলচ্চিত্রটি সম্পর্কে আরও পরিষ্কার ধারণা দেবে।

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আমি শঙ্কিত যে, এমন কোনো ধারণা সেখানে নেই—আর বিষয়টি আপনি হয় উপলব্ধি করতে পারবেন কিংবা পারবেন না। কিছু কিছু বিষয় আছে যার কোনো উত্তর নেই এবং এমন কেউ-ই নেই যে তা ব্যাখ্যা করতে পারে। এই বিষয়গুলো হয় আমরা অনুভব ও উপলব্ধি করি, কিংবা করি না। কিছু কিছু সময় আমরা তা এড়িয়ে যাই এবং এগিয়ে যাই। এটাই স্বাভাবিক। আর এই বিষয়ে সেই সব দর্শকদের আমি খুব বেশি সাহায্য করতে পারি না, যারা চলচ্চিত্রটির বিশেষ কিছু বিষয় বুঝতে পারে নি। বিষয়টি একজন মানুষকে অপর এক মানুষ সম্পর্কে বলার মতো, যে মানুষটিকে সে ইতোমধ্যে নিজেই দেখছে।

শিল্প কোনো কিছু বোঝার ব্যাপারে নির্দেশনা দেবার বিষয় নয় বরং তা নিজেই সম্পূর্ণরূপের একটা বিষয়। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় চিত্রকল্প, ভাবনা নয়।

এরিকা আবিল

তারপরও আপনি চলচ্চিত্রটিকে ‘মানব জীবনের দিকে পৌরাণিক দৃষ্টিপাত’ হিশেবে উল্লেখ করেছেন—এই বিষয়টি কি বিস্তারিতভাবে বলা যায়?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

6
আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

মনে হচ্ছে আপনি দৈনন্দিন জীবন-যাপনের অবস্থান থেকে চলচ্চিত্রটি দেখেছেন। এটা ভুল, কেন না তা আরও অধিক সম্প্রসারিত বিষয় এবং এর রহস্য চলচ্চিত্রটি নিজে আপনার কাছে উন্মোচিত করবে না। কেউ অবশ্যই চিৎকার করে পবিত্র কিছু কিংবা গুরুত্বপূর্ণ অর্থবহতার বিষয়ে কথা বলবে না, কারণ যেইমাত্র সে তা বলা শুরু করবে, যা কিছু রহস্যময় ও পবিত্র তা মুহূর্তেই বাষ্পীভূত হবে। অবশ্যই কেউ না কেউ প্রকৃত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ইঙ্গিত দেবে আর আমি সেটাই করার চেষ্টা করেছি আমার এই চলচ্চিত্রটিতে।

এরিকা আবিল

যাই হোক, যদি আপনাকে চলচ্চিত্রটি সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করতে বলা হয়—

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আমি এই বলব যে, এটা মা হতে পিতাতে আত্মা সঞ্চালনের বিমূর্ত অবতার বিষয়ক।

এরিকা আবিল

সাসপেন্স তৈরি করার জন্য আপনি কোন ধরনের কৌশল অবলম্বন করেছেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

যেহেতু এটা আমার প্রথম চলচ্চিত্র, সুতরাং কৌশল নিয়ে কথা বলা আমার জন্য কিছুটা অপরিপক্বতার। আমার অনেক বন্ধুরাই, যাদের আমি বিশ্বাস করি, তারা আমাকে পরামর্শ দিয়েছিল, যেন আমি পিতার বাক্সটির মধ্যে কী আছে তা দর্শককে দেখাই। কিন্তু আমার অন্তর্জ্ঞান কাজটি করতে চায় নি, বরং আমি অনুভব করেছিলাম যে, এটা যেভাবে আছে সেভাবেই থাক।


আমরা এত কঠোর পরিশ্রম করছি কারণ একদিন আমরা কান-এ পৌঁছাব।


এরিকা আবিল

রাশিয়ায় কি এখন কোনো সমৃদ্ধ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি আছে?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

এই বিষয়ে কথা বলা আমার পক্ষে কঠিন, কারণ আমি মূল ধারার চলচ্চিত্রে নেই। তাছাড়া আমি চলচ্চিত্র স্কুলে যাই নি, বরং থিয়েটারে ছিলাম। সেখানে ছিলেন সুদক্ষ ‘আলেক্সেই জার্মান’—যিনি রাশিয়া ও বহির্বিশ্বে সমান বিখ্যাত, আর জর্জিয়ার ‘ওটার লোসেলিয়ানি’, যিনি ফ্রান্সেই অধিকাংশ সময় কাজ করেছেন।

এরিকা আবিল

সমালোচকরা ‘দ্য রিটার্ন’ এ তারকোভস্কির অনুরণন খুঁজে পেয়েছেন—কিভাবে তিনি আপনাকে অনুপ্রাণিত করেছেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

সময়ের ছন্দ ও গতিময়তার বিষয়ে তার যে দৃষ্টিভঙ্গি, তা যেন স্বপ্নের মতো এগিয়ে চলা। ব্রেসোঁ, চলচ্চিত্র ও চিত্রনাট্যকে এভাবে তুলনা করেছেন—চলচ্চিত্র দেখায় আর চিত্রনাট্য আমাদের মধ্যে ধীরে ধীরে কিছু সঞ্চারিত করে। তারকোভস্কি জানতেন কিভাবে তা করতে হয়। চলচ্চিত্র বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ, দ্রুত স্থান পরিবর্তন ইত্যাদির মাধ্যমে আনন্দ দিয়ে থাকে, কিন্তু চলচ্চিত্র পরিচালকরা, যেমন উইম ওয়েন্ডারস, কোনো দৃষ্টিকোণ পরিবর্তন ছাড়াই নিজেদের একটি বিষয়ে দীর্ঘ সময় ধরে পর্যবেক্ষণের জন্য নিয়োজিত রাখেন আর তাতে দর্শককেও সম্পৃক্ত হবার সুযোগ তৈরি করে দেন। তারা কোনোরূপ তড়িঘড়ি ছাড়াই একটি ফ্রেমের মধ্যে গভীর চিন্তা-ভাবনার জন্য এক শ্রেণির দর্শক তৈরি করেন।

অ্যালেক্সেই কারাখান

‘বিভিন্ন উৎসবে দ্য রিটার্ন এর ফিরে আসা’—এর আলোকে কিভাবে আপনি চলচ্চিত্রটির সাড়া জাগানো সাফল্য ব্যাখ্যা করবেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

কেন বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে নির্বাচক-মণ্ডলীদের কাছে চলচ্চিত্রটি এত জনপ্রিয় ছিল তা আমার পক্ষে বলা কষ্টকর। কিন্তু আপনার কাছে এমন কোনো কারণ আছে কি, যার দরুন এই অভূতপূর্ব সৃষ্টির গুরুত্বকে যথাযথভাবে মূল্যায়ন না করে অবমূল্যায়ন করা যায়? এমন ঘটনা সম্ভবত জীবনে একবারই ঘটে। বর্তমানে আমি সুখকর অনুভূতিতে পূর্ণ, যা এসেছে সম্পূর্ণ অনভিপ্রেতভাবে। যখন আমরা চলচ্চিত্রটি বানাচ্ছিলাম, সবসময়ই আশা করেছি যে, এটা কোনো না কোনো বড় উৎসবে নির্বাচিত হবে এবং মাঝে মাঝে আমি আমার কলা-কুশলী ও দলের সদস্যদেরও বলতাম—‘আমরা এত কঠোর পরিশ্রম করছি কারণ একদিন আমরা কান-এ পৌঁছাব।’

অ্যালেক্সেই কারাখান

তাহলে কি বলতে চান, উৎসবে চলচ্চিত্রটির সাফল্য পূর্বেই ধারণা করা হয়েছিল?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

না, বিষয়টা তেমন নয়। যদিও আমরা প্রায়ই বলতাম, আমরা শিল্পকলার গভীর অনুরাগ সম্বলিত একটি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেছি, যা পশ্চিমে বেশ জনপ্রিয়। এটা ছিল আমার নিজস্ব পছন্দের প্রতিফলন এবং উৎসবে নির্বাচক-মণ্ডলীদের খুশি করার ন্যূনতম প্রয়াস মাত্র। আমার ধারণা আপনি হয়তো লক্ষ করেছেন, যারা চলচ্চিত্রটি পছন্দ করেছেন অথবা দেখেছেন, তারা কেবলমাত্র পিতা-পুত্রের ব্যক্তিগত নাটকীয়তার জন্যই তা করে নি, বরং এর গভীর অর্থবহতার জন্যও করেছেন।

8
দ্য রিটার্ন

অ্যালেক্সেই কারাখান

চলচ্চিত্রটিতে আপনি কী ধরনের অর্থবহ দিক তুলে ধরেছেন?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

আমি প্রতিজ্ঞা করেছি যে, চলচ্চিত্রটিতে আমি কী দেখতে পাই সে সম্পর্কে কথা বলব না। আমি দর্শকের কাছেই তা ছেড়ে দিতে চাই। আমি চাই তারাই নির্ধারণ করুক যে, তারা চলচ্চিত্রটিতে কী অপছন্দ করে, তারা কী বোঝে যা পিতার চরিত্রে নেই, কেন তারা তাকে পছন্দ করে—আর এই সকল বিষয়ে আমার কোনো মন্তব্য যেন তাদের প্রভাবিত করতে না পারে।


গল্পটি কেবল ব্যক্তিগত গণ্ডিতে আবদ্ধ নয়, বরং তা এলোমেলোভাবে কোনো কিছু সংঘটিত হবার বিষয়টিও সমর্থন করে।


অ্যালেক্সেই কারাখান

চলচ্চিত্রটি প্রদর্শনের পর অনেক সমালোচকই একে তারকোভস্কির কাজের সাথে তুলনা করেছেন—এই বিষয়ে আপনার মতামত কী?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

একজন রাশিয়ান চলচ্চিত্র পরিচালক হিশেবে তারকোভস্কির ছেয়ে থাকা প্রভাব অনুভব না করা অসম্ভব। সম্ভবত এ জন্য যে, তিনি আমাদের চলচ্চিত্রের মহানতম ব্যক্তিত্ব। সুতরাং, আমি আহ্লাদিত হয়েছিলাম যখন সমালোচকরা এই সাদৃশ্যের কথা উল্লেখ করেন—হয়তো তা ছিল চলচ্চিত্রটিতে সময়ের বিশেষ গতিময়তার বিষয়ে। সে যাই হোক, না আমি তাকে অনুকরণ করার চেষ্টা করেছি, না তার থেকে উদ্ধৃতি দিয়েছি।

অ্যালেক্সেই কারাখান

আপনার কি ধারণা অপরিণামদর্শী এই পিতার প্রত্যাবর্তনের কোনো তাৎপর্য রয়েছে এবং তা আপনার চরিত্রদের সাহায্য করেছে?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

এখানে পরিচয় না ঘটার বিষয়টি নিতান্তই অর্থহীন। যদি পরিচয় ঘটা জরুরি না-ই হতো, তবে এর জন্য অস্তিত্বহীন হয়ে পড়া ছিল খুবই স্বাভাবিক। গল্পটি কেবল ব্যক্তিগত গণ্ডিতে আবদ্ধ নয়, বরং তা এলোমেলোভাবে কোনো কিছু সংঘটিত হবার বিষয়টিও সমর্থন করে। এখানে সবকিছুরই অর্থ রয়েছে, সবকিছুই এখানে পূর্ব নির্ধারিত। এই পরিচয় ঘটার ব্যাপারটি কারও জন্য ভালো কিছু বয়ে এনেছিল? যখন আমরা পরিচয় ঘটার বিষয়টির দিকে এমন দৃষ্টিভঙ্গিতে তাকাই, যা পবিত্র, তখন সেটা সবার জন্যই সমানভাবে জরুরি হয়ে পড়ে। আমরা পশ্চিমা ধারার সমান্তরাল কিছু সৃষ্টি করতে পারতাম, যেখানে একটি পরিচয় শিক্ষকের সাথে ছাত্রের পরিচয়ের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। সত্যি বলতে, এই বিষয়ে আমি আর এগুতে চাই না। আমাকে বরং সেই সব প্রশ্ন করুন, যার উত্তরের জন্য আমরা এগিয়ে যাব অথবা ভাবনায় নিমজ্জিত হব, যা চলচ্চিত্রটির আরও গভীরে নিয়ে যাবে, আর আমি পূর্বেই বলেছি, কাজটি আমি স্বতঃস্ফূর্তভাবে করব না।

অ্যালেক্সেই কারাখান

তাহলে আপনাকে একটি হালকা প্রশ্ন করি যা আমার মাথায় এল—সেই বাক্সটিতে কী ছিল যা পিতা-পুত্রদ্বয়ের যাত্রায় গন্তব্যের প্রতিনিধিত্ব করে?

আন্দ্রেই জিগানিৎসেভ

এটা গোপনীয় এবং বাস্তবিক অর্থেই গুরুত্বপূর্ণ কিছু নয়। মূলত, বাক্সটি এক প্রকার গোপনীয়তা ধারণ করে, যা রহস্যময় পিতার সাথে সাথেই অন্তর্হিত হয়।


মূল ইন্টারভিউ :

http://movietex.net/the-return-interview-with-director-andrei-zvyagintsevhttp://www.indiewire.com/article/return_of_the_prodigal_father_andrey_zvyagintsev_talks_about_the_return

অরণ্য

অরণ্য

জন্ম ১৯৮১, রাজশাহী। এইচ. আর.-এ এমবিএ। পেশা : ম্যানেজার, এইচ. আর.।

প্রকাশিত বই :
যে বেলুনগুলো রংহীন [কবিতা]
কাক সিরিজ [কবিতা]
এখন আমি নিরাপদ [ছোট গল্প]

ই-মেইল : mail.aronno@gmail.com
অরণ্য