হোম কবিতা এক টুকরো সীমান্ত

এক টুকরো সীমান্ত

এক টুকরো সীমান্ত
734
0

চরিত্র

আমি উলঙ্গ হলেই যত সমস্যা পৃথিবীর
কিন্তু চ ছ জ ঝ এক চুল রাখে নি গায়ে বস্ত্র, কই?
কোথাও তো শুনি নি কান-কথা কিংবা আন্দোলন
গ্রীষ্মের তাপদাহেও পুড়ে নি কোনো চায়ের দোকান
তবু ক্যানো স্বর্গ নরকের হিশেব বুঝানো হয় শুধু আমাকেই!

 

ছায়া

আমি যখন তোমাকে দেখলাম তখন গোধূলি-সন্ধ্যা
চতুর্দিকে দৃষ্টি ফেলতেই দেখি কোথাও কেউ নেই
নিশ্চুপ অন্ধকার আর ঝিঁঝিঁ-পোকারা শুধু ডাকছে।

ছায়ায় ঘুরতে ঘুরতে এক সময় ছায়াহীন হয়ে
অচেনা একটি রেখায় এসে দাঁড়িয়েছিলাম
অথচ কী আশ্চর্য, নিজেই হারিয়ে ফেলেছি নিজের ছায়া।

আলোর সম্মুখে আর দাঁড়ানো হলো না বুঝি আয়নায়
আজ দেখি ছায়াটা অনেক অনেক বদলে গেছে
ফুলের বাগান থেকে শুরু করে হাট-বাজার, বাসস্থান
অতঃপর নিষিদ্ধ পল্লী।

সত্যি ছায়াহীন পৃথিবীতে মানুষ বড্ড বেমানান
ঠিক তেমনি ছায়াহীন মানুষ বড্ড বেমানান মানুষে।

 

এক জীবনে

জল হয়ে জন্ম নিলি আর পাতিল বদল করবি না…
এটা কী করে হয়?

জল তো তরঙ্গে তরঙ্গে ছলাৎ ছলাৎ নৃত্যে স্থান পরিবর্তন করে
তুই না করলে হয়?

মাটি বলেও ভাবতে পারি না তোকে, পারি না বলতে বাউরা বাতাস
আলোও না আবার আঁধারও না, আবার দুটোতেই তোর চলে শ্বাস।

কেউ বলে জীবন, কেউ বলে সুখ, কেউ বলে ঝড়ো মেঘ কিংবা
দুধে জলে মেশানো এক ফোটা বিষ, আর কত এক জীবনে?

 

ভালোবাসা

পাপের পাশেই আছি
ভালোর খুব কাছাকাছি
কোথায় কেমন ভাবছি
বুনছি আর খুঁজছি
ঠিক ভালোবাসা তেমনি।

 

এক টুকরো সীমান্ত

অবশেষে জোড়াতালির দেহ জোড়াতালিই রয়ে গেল
স্বপ্নগুলো নিদ্রামাঝে যেমন আজও কানামাছি হয়ে খেলা করে,
ঠিক হলুদ ময়না পাখিটির মতন, সজাগ পৃথিবীতে ঘুমন্ত
ছায়া কায়া। মানুষগুলো রংধনুর মতো বিবেক রাঙিয়ে ওঠে চরে
তবুও রোজ প্রভাতে খুঁজে ফিরি মানবতার এক টুকরো সীমান্ত।

রুদ্র আমিন

জন্ম ১৪ই জানুয়ারি, ১৯৮১; ফুলহারা, ঘিওর, মানিকগঞ্জ।

শিক্ষা : ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার গ্রাফিক্স ডিজাইনার।

পেশা : চাকরি।

প্রকাশিত গ্রন্থ—

যোগসূত্রের যন্ত্রণা [কবিতা, উদাহরণ, ২০১৫]
আমি ও আমার কবিতা [কবিতা, শব্দকোষ, ২০১৬]
আবিরের লাল জামা [গল্প, শ্রাবণ, ২০১৭]

ই-মেইল : rudraamin71@gmail.com

Latest posts by রুদ্র আমিন (see all)